বুধবার, ৩০ নভেম্বর ২০২২, ০৪:১০ অপরাহ্ন

বঙ্গবন্ধুর ম্যুরাল ভাঙচুরকারিদের বিচার হয় না,অথচ কটুক্তিকারির বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হয়ঃমোকতাদির চৌধুরী এম.পি

Reporter Name
  • Update Time : বুধবার, ৮ ডিসেম্বর, ২০২১
  • ১০৪ Time View

এসএন বাংলা নিউজ ডেস্কঃ ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর আসনের সংসদ সদস্য ও বেসামরিক বিমান ও পর্যটন মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি র.আ.ম উবায়দুল মোকতাদির চৌধুরী বলেছেন, বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে কটুক্তিকারীর বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে, অথচ বঙ্গবন্ধুর ম্যুরাল ভাংচুরকারিদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হয় না। তাদেরকে আদর সোহাগ করা হয়। এ যেন এক দেশে দুই আইন।

 

তিনি বুধবার বেলা ১১টায় ব্রাহ্মণবাড়িয়া মুক্ত দিবস উদযাপন কমিটির উদ্যোগে মুক্ত দিবস উপলক্ষে স্থানীয় শহীদ ধীরেন্দ্রনাথ দত্ত ভাষা চত্ত্বরে আয়োজিত মুক্তিযোদ্ধা সমাবেশ ও মুক্তিযোদ্ধা মিলন মেলায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে এই কথা বলেন।ব্রাহ্মণবাড়িয়া মুক্ত দিবস উদযাপন কমিটির আহবায়ক যুদ্ধাহত মুক্তিযোদ্ধা আল-মামুন সরকারের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে মোকতাদির চৌধুরী এমপি আরো বলেন, ব্রাহ্মণবাড়িয়াকে নিয়ে নিয়ে ষড়যন্ত্র হচ্ছে। ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলায় এক সময় এক সাথে ২১ জন সচিব ছিলেন, সেটা হয়তো অনেকের কাছে ভালো নাও লাগতে পারে।

তিনি অভিযোগ করে বলেন, ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় ব্যাঙের ছাতার মতো মাদরাসা গড়ে উঠছে। কোন নিয়মনীতি নেই, একই বিল্ডিংয়ে একতলা থেকে ৫তলা পর্যন্ত পাঁচটি মাদরাসা। তিনি বলেন, মাদরাসা গুলোতে ইসলামের সঠিক শিক্ষা দেওয়া হচ্ছে না। মাদরাসা শিক্ষার নামে ব্যবসা বন্ধ করতে হবে। আমি চাই মাদরাসা বিষয়ে সব জেলায় একটি করে কমিটি হবে। যে কমিটিতে কওমির লোকজনও থাকবে। এক মাদরাসা থেকে আরেক মাদরাসার দূরত্ব কত হবে সেটার একটা নীতিমালা থাকতে হবে।

তিনি বলেন, এম.পি হন আর মন্ত্রী হন, যদি জয় বাংলা জয় বঙ্গবন্ধু বলেন তাহলে আমার কোন আপত্তি নেই। যারাই জয় বাংলা জয় বঙ্গবন্ধু বলবে তারাই আমার লোক। জয় বাংলা হলো আমাদের বাঙ্গালীর প্রাণের শ্লোগান। জয় বাংলা জয় বঙ্গবন্ধু বলা কোনো লোকের সাথে আমার বিরোধ নাই।তিনি মুক্তিযুদ্ধেরস্মৃতি যেন বিস্মৃতিতে তলিয়ে না যায় সে বিষয়ে কাজ করার জন্য সকলের প্রতি আহবান জানান।সমাবেশে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন জেলা প্রশাসক হায়াত-উদ-দৌলা খাঁন, পুলিশ সুপার মোহাম্মদ আনিসুর রহমান, পৌর মেয়র মিসেস নায়ার কবির।

মুক্তিযোদ্ধার সন্তান মোঃ সাইদুজ্জামান আরিফের সভাপতিত্বে অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মোঃ ফিরোজুর রহমান ওলিও, সাহিত্য একাডেমির সভাপতি কবি জয়দুল হোসেন, প্রেস ক্লাব সভাপতি রিয়াজ উদ্দিন জামি, চেম্বার অব কমার্স এন্ড ইন্ড্রাস্টির সভাপতি মোঃ আজিজুল হক, বীর মুক্তিযোদ্ধা আক্তার হোসেন সাঈদ, বীর মুক্তিযোদ্ধা ওয়াসেল সিদ্দিকী, বীর মুক্তিযোদ্ধা আবু হোরায়রাহ, বীর মুক্তিযোদ্ধা রুহুল আমীন ভূঁইয়া বকুল।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category
© All rights reserved © 2021 SN BanglaNews
কারিগরি সহযোগিতায়: