শনিবার, ২৪ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ০৪:৩০ অপরাহ্ন
সর্বশেষ :
ঝিনাইদহে আলোর দিশারী’র প্রথম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালিত নিলয়ের ‘হৃদয় নিয়ে খেলা’ সিনেমায় শিশির সর্দার ঝিনাইদহ সমাজ সেবা কার্যালয়ের উপ-পরিচালকের বিদায় অনুষ্ঠান ঝিনাইদহে মাসব্যাপী ফুটবল প্রশিক্ষণের সমাপনী ঝিনাইদহে ২ দিন ব্যাপী কারাতে সেমিনারের উদ্বোধন জেলার শ্রেষ্ঠ হয়েছেন বেনাপোল পোর্ট থানার ওসি সুমন ভক্ত ও এসআই ঝন্টু কুমার বসাক ঝিনাইদহে স্কাউটস’র প্রতিষ্ঠতা গিলওয়েল’র ১৬৭ তম জন্ম বার্ষিকী উদযাপন শূন্যরেখায় দুই বাংলার ভাষাপ্রেমিদের শ্রোদ্ধা নিবেদন খাগড়াছড়ি কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে ভাষাশহীদের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন করেন পার্বত্য প্রতিমন্ত্রী কুজেন্দ্র লাল ত্রিপুরা এমপি “শার্শা উপজেলা সাংবাদিক ঐক্য পরিষদ” এর পক্ষ থেকে ২১শে শহীদ মিনারে পুস্পমাল্য অর্পণ

ঝিনাইদহের সামাজিক বনায়ন প্রাকৃতিক বিপর্যয় রোধে কাজ করছে

বসির আহাম্মেদ,ঝিনাইদহ প্রতিনিধি।
  • Update Time : বুধবার, ৩১ জানুয়ারী, ২০২৪
  • ২২ Time View

ঝিনাইদহের শৈলকুপা উপজেলার লাঙ্গলবাঁধ এলাকার জিকে সেচ খালের পাড়ের ডাউটিয়া ব্রীজ হতে লাঙ্গলবাঁধ বাজার পর্যন্ত শোভা পাচ্ছে দৃষ্টিনন্দন বাগান। এখানে রোপন করা হয়েছে চিকরাশি, জারুল, অর্জুন, খয়ের, সোনালু, বাবলা, শিমুল, শিশু, মেহগনি, নিম, বহেরা, হরিতকিসহ প্রায় ১৮ টি বিভিন্ন প্রজাতির গাছ।
সবুজায়নের ফলে প্রাকৃতিক পরিবেশ সুন্দর ও উন্নত হয়েছে সেই সাথে অক্সিজেন সরবরাহের উৎস হিসেবে কাজ করছে দৃষ্টিনন্দন এই বাগানটি।
জানা যায়, যশোর সামাজিক বন বিভাগ ঝিনাইদহের শৈলকুপা উপজেলায় ২০২১-২২ অর্থ বছরে জিকে প্রধান সেচখালের ডাউটিয়া ব্রীজ হতে লাঙ্গলবাঁধ বাজার পর্যন্ত ১০ কিলোমিটার এলাকা জুড়ে অন্তত ১০ হাজার টি বিভিন্ন প্রজাতের গাছের চারা রোপণ করেছে। বাগানের দেখভাল করেন ওই এলাকার ৫৭ জন উপকারভোগী। যার মধ্যে পুরুষ ৫২ জন ও মহিলা ৫ জন।

সংশ্লিষ্টরা জানায়, আগামী ১০ বছর পর বাগানের গাছ বিক্রি করে বিক্রয়লব্ধ অর্থের ৫৫ শতাংশ লভ্যাংশ উপকারভোগী সদস্যের মাঝে সমভাবে প্রদান করা হবে। এছাড়া ভূমি মালিক ও স্থানীয় ইউনিয়ন পরিষদকেও সামাজিক বনায়নের নীতিমালার আলোকে লভ্যাংশ প্রদান করা হবে। বাগানটির উপকারভোগী সদস্যগণ স্বতঃস্ফূর্তভাবে রোপিত গাছ পাহারার কাজে সহযোগিতা করছেন।

সামাজিক বায়নের সভাপতি স্থানীয় বাসিন্দা সুজন মিয়া বলেন, এই খাল পাড়ে আগে কোন গাছ ছিলো না। সামাজিক বন বিভাগ এখানে গাছ রোপন করেছে। এতে যেমন এলাকার সৌন্দর্য বৃদ্ধি পেয়েছে। ঠিক তেমনি এই এলাকার খাল পাড়ের ভুমি ধ্বস রক্ষা পাবে।
স্থানীয় বাসিন্দা রফিকুল ইসলাম বলেন, জিকে সেচ খালের পাড়ে অন্তত ১৮ টি বিভিন্ন জাতের গাছ রোপন করা হয়েছে। গাছগুলি স্থানীয় লোকজন পরিচর্যা ও পাহারা দিচ্ছে। এ ভাবে যদি গাছ বাড়তে থাকে তাহলে বন বিভাগের এ ধরণের বনায়ন কর্মসূচির কারণে পতিত এ জায়গায় অচিরেই লক্ষ লক্ষ টাকা বৃক্ষ সম্পদে পরিণত হবে।
ঝিনাইদহ বন বিভাগের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা জাকির হোসেন বলেন, লাঙ্গলবাঁধ এলাকার খালের পাড়ে সৃজিত বাগানটি এলাকায় দৃষ্টিনন্দন অবস্থার সৃষ্টি করেছে। বিভিন্ন প্রজাতির পাখ-পাখালির কলরবে বাগানটি পরিপূর্ণ। বাগানটি ভূমিক্ষয়, বাঁধ সংরক্ষণ ও প্রাকৃতিক বিপর্যয় রোধে সহায়তা করছে।

স্থানীয় কৃষক ও পথিকগণ গাছর ছায়ায় বিশ্রাম নিয়ে থাকেন। বাগানটি আর্থ সামাজিক উন্নয়নের সাথে সাথে প্রাকৃতিক পরিবেশের উন্নয়ন সাধনে ভুমিকা পালন করছে।
তিনি আরও জানান, শৈলকুপা উপজেলায় বন বিভাগের এই ধরনের সামাজিক বনায়ন কর্মসূচি চলমান থাকবে।

Please Share This Post in Your Social Media

More News Of This Category
© All rights reserved © 2023 SN BanglaNews
কারিগরি সহযোগিতায়: